যে ৯টি বই অবশ্যই উদ্যোক্তাদের পড়া উচিত

117

109

যে ৯টি বই অবশ্যই উদ্যোক্তাদের পড়া উচিত

  • 0
  • #খোশগল্প #বই রিভিউ
  • Author: Zahid Hasan
  • Share

কর্মজীবনে পরিকল্পনা আর সাফল্যের অনুপাতটা কেন যেন এক হতে হতেও হয়ে ওঠে না! বছরের শুরুতে ডায়েরীর পাতায় গোছানো সংকল্পগুলো কয়েক মাস যেতে না যেতেই হারিয়ে যায় কোথায় যেন! দেখতে দেখতে কেটে যাচ্ছে আরো একটি বছর, ২০১৭ সাল পেরিয়ে আমরা যাচ্ছি ২০১৮ সালের দিকে। এই সময়ে অনেক কিছুই করতে পেরেছি আবার অনেক কিছু করতে না পারাটা হয়তো অনেকেরই মন খারাপের কারন, গোছানো সংকল্পগুলো ব্যর্থতায় পর্যবসিত হওয়ার এই চক্র কর্মমুখী মানুষ মাত্রের-ই চিরচেনা!কিন্তু পরিকল্পনা আর বাস্তবতার মাঝের এই অদৃশ্য পার্থক্য দূর করবার উপায়টা কি?মনস্তত্ববিদ আর প্রোডাক্টিভিটি এক্সপার্টদের কাছ থেকে এক শব্দে জানতে চাইলে উত্তর পাবেন- অভ্যাস!!

হ্যাঁ, একটি সুন্দর পরিকল্পনা দাঁড় করাবার পর সেই পরিকল্পনা অনুসরনের ক্ষেত্রে আপনাকে সবচাইতে সাহায্য করবে অভ্যাস গড়ে তোলার অভ্যাস।

পরিকল্পনা মাফিক করণীয় কাজগুলোকে দৈনন্দিন জীবনের অংশ করে তুলুন অভ্যাস হিসেবে।আর কাজগুলোকে অভ্যাস হিসেবে প্রতিষ্ঠার জন্য নিজের জন্য ট্রিগার মোমেন্ট ঠিক করে নিন। দৈনন্দিন কোন একটি কাজ, যে-টি করে আপনি ইতিমধ্যেই অভ্যস্ত, তার সাথে নতুন কাজটিকে জুড়ে দিন। উদাহরন দেয়া যাক, ধরুন শারীরিক অনুশীলনে নিয়মিত হওয়া আপনার এ বছরের কর্মপরিকল্পনার অংশ, দাঁত মাজার মতো প্রাত্যহিক কোন একটি কাজের সাথে এটিকে সম্পর্কিত করে নিন,তার মানে প্রতিদিন সকালে দাঁত মাজবার পর আপনার প্রথম কাজ হবে একটু হাত-পা ছুঁড়ে নেয়া! এভাবে অভ্যাসবশত নিয়মিত করা কোন একটি কাজকে এই নতুন কাজটির ট্রিগার হিসেবে ব্যবহার করুন! শুধু কাজই নয়,কোন একটি স্থানের সাথে সম্পর্কিত করেও অভ্যাস তৈরী করতে পারেন! অফিস কিংবা বাসার দরজার চৌকাঠ সকালে প্রথমবার পেরুনোর সাথে সাথে কোন একটি জরুরী কাজ সেরে নিতে পারেন! কিছুদিন পর লক্ষ্য করবেন ঐ চৌকাঠ পেরুনো কিংবা দাঁত মাজার পরপর কোন ইচ্ছাশক্তির খরচ ছাড়াই দরকারী কাজটুকু আপনার মনই আপনাকে দিয়ে করিয়ে নিচ্ছে!

Write a Comment